in

ইতিহাসের যে প্রশ্নগুলোর উত্তর সবাই ভুল করে

ইতিহাস সম্পর্কে একটি খুবই জনপ্রিয় ধারণা প্রচলিত রয়েছে, তা হলো: এর চেয়ে বিরক্তির আর কোনো বিষয় নাকি হতেই পারে না। ইতিহাস পড়তে বসলেই নাকি শিক্ষার্থীদের ঝিমুনি চলে আসে। কিন্তু আসলেই কি তা সঠিক? এমন অনেক শিক্ষার্থীকেও কিন্তু খুঁজে পাওয়া যাবে, ইতিহাস বিষয়ে যাদের রয়েছে অগাধ আগ্রহ। কিছু শিক্ষার্থী তো আবার ইতিহাসের বইকে নেহাতই কোনো পাঠ্যপুস্তক হিসেবে নয়, গল্প-উপন্যাসের মতোই আকর্ষণীয় কোনো বই মনে করে পড়তে থাকে।

তবে ইতিহাসের এমন কিছু বিভ্রান্তিকর প্রশ্ন আছে, যেগুলোর উত্তর দিতে গিয়ে এই অতি আগ্রহী শিক্ষার্থীরাও প্রায় সময়ই ভুল করে বসে। আর যাদের ইতিহাস বিষয়ে নাক সিঁটকানো ভাব রয়েছে, তাদের কথা আর না বলাই ভালো। এসব প্রশ্নের যে ভুল উত্তরই আসবে তাদের থেকে, সেটা তো বলাই বাহুল্য। তাহলে চলুন পাঠক, জেনে নিই কী সেই প্রশ্নগুলো, যেগুলোর উত্তর অধিকাংশ শিক্ষার্থীই ভুল দিয়ে থাকে। আপনারাও মিলিয়ে নিন, আপনারা এর মধ্যে থেকে কয়টির সঠিক উত্তর জানতেন।

কারা লড়েছিল ফরাসি ও ইন্ডিয়ান যুদ্ধে?

ফরাসি ও ইন্ডিয়ান যুদ্ধ; Image Source: Shutterstock

নাম শুনে অনেকের কাছেই মনে হতে পারে, এটি বুঝি ফ্রান্স ও ভারতের মধ্যকার যুদ্ধ। কিন্তু না, এই যুদ্ধ মূলত সাত বছরের যুদ্ধ নামে পরিচিত, যা আসলে সংগঠিত হয়েছিল নয় বছরব্যাপী, ১৭৫৪ থেকে ১৭৬৩ সাল পর্যন্ত। আর এ যুদ্ধে অংশ নিয়েছিল ফ্রান্স ও গ্রেট ব্রিটেন, উত্তর আমেরিকার কিছু অঞ্চল দখলের উদ্দেশ্যে। শেষ পর্যন্ত ১৭৬৩ সালে প্যারিস চুক্তির মাধ্যমে এ যুদ্ধের সমাপ্তি হয়, আর ব্রিটেন জিতে নেয় বিশাল আয়তনের ভূমি।

আমেরিকা আবিষ্কার করেন কে?

আমেরিকা আবিষ্কার; Image Source: Shutterstock

প্রথমেই একটি বিষয় মাথায় রাখতে হবে, নেটিভ আমেরিকানরা তথা আদিবাসিরা কিন্তু ২৩,০০০ বছর আগে থেকেই আমেরিকায় বাস করছে। তাই প্রশ্নটি হওয়া উচিৎ এমন যে, কোন ইউরোপীয় প্রথম আমেরিকার মাটিতে পা রেখেছেন। আর সেক্ষেত্রেও, উত্তরটি কখনোই ক্রিস্টোফার কলম্বাস হতে পারে না। কেননা ক্রিস্টোফার কলম্বাস আমেরিকার হদিস পাওয়ারও ৪০০ বছর পূর্বে ভাইকিং লেইফ এরিকসন অবতরণ করেছিলেন কানাডায়। এখন আবার এমন তর্ক জুড়ে দেবেন না যেন যে এরিকসন পা রেখেছিলেন কানাডায়, যুক্তরাষ্ট্রে নয়। কেননা কলম্বাসও কিন্তু তার চারবারের ভ্রমণে একবারও যুক্তরাষ্ট্রের ৫০টি রাজ্যের কোনোটিতে পা রাখেননি। তিনি গিয়েছিলেন কেবল ক্যারিবীয় দ্বীপপুঞ্জ এবং কেন্দ্রীয় ও দক্ষিণ আমেরিকায়। এখন আমরা যেটিকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র বলে চিনি, সেখানে প্রথম হাজির হয়েছিল স্প্যানিশরা।

যুক্তরাষ্ট্রের স্বাধীনতার ঘোষণাপত্র স্বাক্ষরিত হয়েছিল কবে?

যুক্তরাষ্ট্রের স্বাধীনতার ঘোষণাপত্রে স্বাক্ষর; Image Source: Shutterstock

অনেকেই বলতে পারেন, তারিখটি ৪ জুলাই, কেননা এদিনই যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিকরা তাদের স্বাধীনতা দিবস পালন করে থাকে। কিন্তু প্রকৃতপক্ষে এ দিনে তাদের স্বাধীনতার ঘোষণাপত্রটি স্বাক্ষরিত হয়নি। দেশটি তাদের স্বাধীনতা ঘোষণা করে ১৭৭৬ সালের ২ জুলাই। এর দুইদিন বাদে, ৪ জুলাই স্বাধীনতার ঘোষণাপত্রটির চূড়ান্ত খসড়া সম্পন্ন হয় এবং কংগ্রেসের অনুমোদন পায়। কিন্তু ২ আগস্টের আগ পর্যন্ত সেটি স্বাক্ষরিত হয়নি।

ডি-ডে’র “ডি” অর্থ কী?

ডি-ডে; Image Source: Shutterstock

খুবই কৌশলী একটি প্রশ্ন এটি। কেননা “ডি” দ্বারা কোনো শব্দেরই সংক্ষিপ্ত রূপ বোঝানো হয়নি। এটি কেবলই একটি স্থানধারক হিসেবে ব্যবহৃত হয়েছিল। তবে অনেকেই এর বিরোধিতা করতে পারে। “ডি” দ্বারা তারা “ডেলিভারেন্স” বা “ডুম” বুঝে থাকে। এদিকে এইচ-আওয়ার দ্বারা বোঝানো হয় সেই সময়টি, যখন যুদ্ধ শুরু হয়েছিল। এছাড়া ডি+১ দ্বারা বোঝানো হয় ডি-ডে’র পরের দিন। আবার এইচ-২ দ্বারা বোঝানো হয় যুদ্ধ শুরু হওয়ার দুই দিন আগে।

কবে হয়েছিল রাশিয়ার “রেড অক্টোবর” বিপ্লব?

রেড অক্টোবর বিপ্লব; Image Source: Shutterstock

না, নামে অক্টোবর থাকলেও, এটি আসলে অক্টোবর মাসে সংগঠিত হয়নি। ১৯১৭ সালের যে বিপ্লবের মাধ্যমে সোভিয়েত শাসনব্যবস্থা প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল, সেটি ঘটেছিল ৭ নভেম্বরে। তাহলে অক্টোবর মাসের কথা কীভাবে আসল? কারণটি বেশ চমকপ্রদ। ওই সময় রাশিয়ায় ব্যবহৃত হচ্ছিল জুলিয়ান ক্যালেন্ডার। আর যেদিন বিপ্লবটি সংগঠিত হলো, জুলিয়ান ক্যালেন্ডারে তারিখটি ছিল ২৫ অক্টোবর।

১৮১২ সালের যুদ্ধ হয়েছিল কবে?

১৮১২ সালের যুদ্ধ; Image Source: Shutterstock

হ্যাঁ, আগেরটির মতো এটির উত্তরও প্রশ্নের থেকে ভিন্ন। নাম ১৮১২ সালের যুদ্ধ হলেও, যুক্তরাষ্ট্র এবং গ্রেট ব্রিটেন ও তার মিত্রশক্তিদের মধ্যকার যুদ্ধটি কেবল এক বছরেই শেষ হয়নি। ১৮১২ সালের জুন মাসে শুরু হয়ে যুদ্ধটি অব্যাহত ছিল ১৮১৫ সালের ফেব্রুয়ারি মাস পর্যন্ত।

ইতিহাসের সর্ববৃহৎ অখন্ড সাম্রাজ্য ছিল কোনটি?

ইতিহাসের সর্ববৃহৎ অখন্ড সাম্রাজ্য; Image Source: Shutterstock

প্রশ্ন শোনার সাথে সাথেই নিশ্চয়ই সবার মনে ব্রিটিশ সাম্রাজ্যের নামটি চলে এসেছে। কেননা কথায়ই তো ছিল, “ব্রিটিশ সাম্রাজ্যের সূর্য কখনো অস্তমিত হয় না।” কীভাবেই বা হবে বলুন, এ সাম্রাজ্য যে পৃথিবীর বিভিন্ন প্রান্তে পুরো ১৩.৭১ বর্গমাইল জায়গা জুড়ে বিস্তৃত ছিল। কিন্তু তারপরও, বিশ্ব ইতিহাসের সর্ববৃহৎ অখন্ড সাম্রাজ্য হলো মঙ্গল সাম্রাজ্য। চেঙ্গিস খান যখন উত্তর-পূর্ব এশিয়ার উপজাতিগুলোকে এক করে এ সাম্রাজ্য গড়ে তুলেছিলেন, ১২৭০ সালে তার অখন্ড আয়তন ছিল ৯.২৭ বর্গমাইল। ব্রিটিশ সাম্রাজ্যের আয়তন এর চেয়ে বেশি হলে কী হবে, সেগুলো যে অখন্ড ছিল না, বিভিন্ন জায়গায় ছড়িয়ে ছিটিয়ে ছিল।

ইতিহাসের ক্ষুদ্রতম যুদ্ধ কোনটি?

ইতিহাসের ক্ষুদ্রতম যুদ্ধ; Image Source: Shutterstock

এটি এমনই একটি প্রশ্ন, যার উত্তর পৃথিবীর খুব বেশি ইতিহাস বা সামাজিক বিজ্ঞানের পাঠ্যপুস্তকে পাওয়া যাবে না। ১৮৯৬ সালে অ্যাংলো-জাঞ্জিবার যুদ্ধের সময়, পূর্ব-আফ্রিকান দ্বীপরাষ্ট্র জাঞ্জিবার পালটা আঘাত হানে ব্রিটিশ সাম্রাজ্যের উপর। যুদ্ধটি শুরু হয়েছিল ২৬ আগস্ট সকাল ৯টার দিকে। কিন্ত ঘড়ির কাঁটা ৯টা ৪০ ছোঁয়ার আগেই শেষ হয়ে গিয়েছিল যুদ্ধটি। মাত্র ৩৮ মিনিটের এ যুদ্ধটি ইতিহাসের সর্বকনিষ্ঠ যুদ্ধ হিসেবে পরিচিত, যাতে জয় হয়েছিল ব্রিটিশদের।

অ্যাডলফ হিটলারের জন্ম কোথায়?

অ্যাডলফ হিটলারের জন্ম; Image Source: Shutterstock

জার্মান এই স্বৈরশাসকের জন্ম জার্মানিতে, এমনটি যাদের ধারণা, তারা সর্বৈব ভুল। আসলে হিটলারের জন্ম ১৮৮৯ সালের ২০ এপ্রিল, অস্ট্রিয়ার ব্যাভেরিয়ার মাঝামাঝি ব্রানাউ অ্যাম ইন নামে এক আধা গ্রামে। গ্রামটি ছিল একদমই জার্মান বর্ডারের গা ঘেঁষা।

কোন গৃহযুদ্ধে এক দিনে সবচেয়ে বেশি মানুষ হতাহত হয়েছে?

গৃহযুদ্ধে একদিনে সর্বোচ্চ হতাহত; Image Source: Shutterstock

অনেকেই বলতে পারেন গেটিসবার্গের নাম। কেননা এ যুদ্ধে মোট ৫১,০০০ মানুষ নিহত, আহত, নিখোঁজ কিংবা বন্দি হয়েছিল—যা বিপ্লবী যুদ্ধ, ১৮১২ সালের যুদ্ধ এবং মেক্সিকোর যুদ্ধের মোট হতাহতের সংখ্যার চেয়েও বেশি। কিন্তু এ যুদ্ধটি চলেছিল তিনদিন ধরে। যদি কেবল একদিনের যুদ্ধেই সবচেয়ে বেশি হতাহতের হিসাব করতে হয়, তাহলে উত্তরটি হবে অ্যান্টিটাম, যেখানে একদিনে হতাহতের সংখ্যা ছিল ২২,৭২৬।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Loading…

0

Comments

0 comments

৩৮ মিনিটে শেষ হয়েছিল যে যুদ্ধ

দাড়ি যখন হাস্যকর!